বোয়ালমারীতে গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে এম,পি প্রার্থী আব্দুর রহমানের মতবিনিময়

Bortoman Protidin

১৮ দিন আগে বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ২২, ২০২৪


#
মুকুল বসু বোয়ালমারী প্রতিনিধি :
ফরিদপুর-১ আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় এম,পি প্রার্থী আব্দুর রহমান গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে মতবিনিময় করেছেন। মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) রাত ৮টায় জেলার বোয়ালমারী উপজেলার স্টেশন রোডস্থ একটি চাইনিজ রেস্টুরেন্টে এ মতবিনিময় করেন। আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে এ সময় তিনি সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।
এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম মেম্বার আবদুর রহমান বলেন, বোয়ালমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আজ এখানে উপস্থিত নেই। তার সাথে আমার কথা হয়েছে। সভাপতি হিসেবে যে দায়িত্ব পালন করার কথা তা সে করছে। আমরা সকলে মিলেই এই দলের নির্বাচনী কাজগুলো করছি। দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার পর অনেক প্রার্থীর বাড়িতে গেছি, দেখা হয়েছে, কথা হয়েছে। ফরিদপুর-১ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশীর সংখ্যা অধিক সংখ্যক হওয়ার কারণ প্রসঙ্গে আব্দুর রহমান বলেন, দলে সহনশীলতা, অতি মাত্রায় উদারতা এবং অতি মাত্রায় গণতান্ত্রিক রাজনীতির চর্চার সুযোগ থাকায় এত বেশি সংখ্যক মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিল। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, নতুন নেতৃত্বকে সামনে নিয়ে আসার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। নতুন নেতৃত্বের বিকাশ হতে হবে। তিনি আরো বলেন, সংগঠনগতভাবে বোয়ালমারীতে আওয়ামী লীগ সবচেয়ে শক্তিশালী সংগঠন। বোয়ালমারীর রাজনৈতিক ইতিহাসে এরকম শক্তিশালী ছাত্রসংগঠন এবারই প্রথম দেখেছি। যুবলীগের মধ্যে বিভাজন থাকলেও জেলা যুবলীগের প্রতি সকলেরই শ্রদ্ধাবোধ আছে। মৎস্যজীবী লীগও হাঁটি হাঁটি পা পা করে আগাচ্ছে। স্বেচ্ছাসেবকলীগ খুব ভালো করছে। এভাবে নেতৃত্বের বিকাশ হবে। রাজনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ হতে হবে। রাজনীতিতে আচার, আচরণ, চালচলন, কথাবার্তা, ব্যবহার, সংস্কৃতির একটা আলাদা মর্যাদা যদি থাকে তবে তার বিকাশ হবে। জেলা যুবলীগ আমার হাতে গঠন করেছি। সারা দেশে ৬০টি জেলা ইউনিট আছে। এর মধ্যে ফরিদপুর জেলা যুবলীগ শ্রেষ্ঠ হয়েছে। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি পালটা প্রশ্ন করেন, নেত্রী যদি সবাইকেই নির্বাচনে দাঁড়াতে বলবেন তাহলে কেন দলের মনোনয়ন দিয়েছেন? তিনি যখন দলের সকল মনোনয়ন প্রত্যাশীদের ডেকেছিলেন তখন তিনি অডিয়্যান্সকে বলেছিলেন ৪৭০০ মনোনয়ন পেয়েছি, আর মনোনয়ন পাবে ৩০০ জন। এই ৩০০ মানুষ আপনারা ঠিক করেন। তখন হাউজ থেকে বলেছে না, আপনার উপর দায়িত্ব দিলাম এটা আপনি ঠিক করে দেন। এরপর নেত্রী বলেছেন, আমি যদি ঠিক করে দেই আপনারা মানবেন? দুই হাত তুলে তখন সবাই বলেছে আমরা মানবো। তাহলে যারা দলের মনোনয়ন পেয়েছে তাদের সবাই মানবেন। নেত্রী বলেছেন কেউ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে পারবেন না। এজন্য ড্যামি প্রার্থী থাকবে। এর অর্থ ড্যামি মানে আসল নয়। ড্যামি প্রার্থী হবে প্রার্থীর পছন্দের। আর কোন প্রার্থী না থাকলে ড্যামি প্রার্থী হবে। আর মতলববাজরা যারা নির্বাচন করতে চায় তারা এটাকে একটা অজুহাত বানিয়েছে। অজুহাত দিয়ে নেত্রীর কথার ভুল ব্যাখ্যা বানিয়েছে। তিনি বলেন, ১৭ ডিসেম্বরের পরে যদি কেউ স্বতন্ত্র প্রার্থী হয় কিংবা স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করে দলে পদধারী নেতা হলে তাকে দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হবে এবং শোকজ করা হবে তাকে কেন স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না। আর যদি দলের পদধারী না হয় তার জন্য দলের দরজা সারা জীবন বন্ধ থাকবে। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বোয়ালমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শাহজাহান মীরদাহ পিকুল, পৌরসভার মেয়র সেলিম রেজা লিপন, চতুল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও যুবলীগনেতা শরীফ সেলিমুজ্জামান লিটু প্রমুখ।

global fast coder
ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

সর্বশেষ

#

কাল শুরু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তিযুদ্ধ

#

পোস্তগোলা সেতু বন্ধ, বিকল্প পথ ব্যবহারের অনুরোধ

#

পৌনে দুই কোটি টাকার স্বর্ণ মিলল বিমানের ৪ যাত্রীর কাছে

#

ভাষা আন্দোলন দমাতে কারান্তরীণ রাখা হয় বঙ্গবন্ধুকে : সজীব ওয়াজেদ

#

বেনাপোল নো-ম‍্যান্সল‍্যান্ডে অস্থায়ী শহীদ মিনারে দু-বাংলার ভাষাপ্রেমী মানুষের ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন

#

বাংলাদেশের সমুদ্রসীমার উন্নয়নে নানা ধরণের পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী

#

মাতৃভাষায় শিক্ষা নিলে জানা ও বোঝা অনেক সহজ হয়: প্রধানমন্ত্রী

#

ভাষার টানে দুই বাংলার ভাষাপ্রেমীদের মিলনমেলা

#

মেধাবী সাব্বিরকে মেডিকেলে ভর্তির টাকা দিলেন ইউএনও

#

মার্কিন উপ-সহকারী মন্ত্রী আফরিন আসছেন ঢাকায়

Link copied