ব্রেকিং নিউজ

নিষ্পাপ শিশুকে বাঁচাতে বাবা-মায়ের আকুতি

বর্তমান প্রতিদিন bartoman pratidin
প্রকাশিত : বুধবার, ২০২২ আগস্ট ৩১, ০১:৪৮ অপরাহ্ন

নিজস্ব প্রতিনিধি: 

শৈশবের দুরন্তপনায় মেতে থাকার পরিবর্তে দিন দিন ঝরা ফুলের মতো নুইয়ে পড়ছে শিশু রুহান। মরণ ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে রাফিউল ইসলাম রুহান বেদনার্ত চোখে বাঁচার আকুতি জানাচ্ছে। সন্তানকে বাঁচাতে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে সকলের কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন রুহানের বাবা ও মা।

আত্রাই উপজেলার বিশা ইউনিয়নের তেজনন্দী গ্রামের জয়নুল সরদার ও রোজিনা বিবি দম্পতির দ্বিতীয় সন্তান রাফিউল ইসলাম রুহান (৫)। সহায় সম্বল হারিয়ে বর্তমানে তারা তাদের গ্রামের কুঁড়ে বাড়িতে থাকেন। জীবিকার তাগিদে রুহানের বাবা জয়নুল ভাড়া অটো চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছেন। মা রোজিনা বিবি মাঠে ও মানুষের বাড়িতে কাজ করে স্বামীকে সহযোগিতা করেন।

এ বিষয়ে রুহানের মা রোজিনা বিবির সাথে কথা বললে তিনি জানান, প্রথম সন্তান হবার ৮/৯ বছর পর অভাবের সংসারে দ্বিতীয় সন্তান রুহান জন্মনিলে কিছুটা স্বচ্ছলতার মুখ দেখতে শুরু করি। যখন রুহানের বয়স ৩/৪ মাস তখন সে বুকের দুধ খেতে পারেনা শুধু কাঁদে। এভাবে দিন দিন সমস্যা বাড়তে থাকলে রাজশাহী শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. এবি সিদ্দিকিকে দেখাই। সেখানে পরীক্ষা করে বাচ্চার হার্টে ফুটো এবং একটি ভাল্ব নষ্ট ধরা হরে। সেখানকার চিকিৎসায় বাচ্চা সুস্থ নাহলে ঢাকা হৃদরোগ হাসপাতালে ডাক্তার দেখাই। তারপর ঢাকা আগারগাঁ শিশু হাসপাতালে ভর্তি করে সেখানে ১৮ দিন চিকিৎসা শেষে কিছুটা সুস্থ হয়। তখন সেখানকার ডাক্তার ভারতে দেবিশেঠিকে দেখাতে বললে ২০১৮ সালের জুলাই মাসে ভারতে যাই। পরীক্ষা-নিরিক্ষা শেষে ডাক্তার দেবিশেঠি ৩ বছরের চিকিৎসা দিয়ে আবার সেখানে যেতে বলেন। ৩ বছর পেরিয়ে ৪ বছর চললেও টাকার অভাবে ভারতে যেতে পারছেননা বলে জানান তিনি। 

রুহানের বাবা জয়নুল জানান, ডাক্তার দেবিশেঠি জানিয়েছিলেন পরবর্তীতে আসলে রুহানকে অপারেশন করাবেন। আর অপারেশন করাতে ৫/৬ লাখ টাকার প্রয়োজন হতে পারে। কিন্তু আমার একার পক্ষে এতগুলো টাকা জোগাড় করা কোনোভাবেই সম্ভব নয়। তাই সারাক্ষন মনে হয় যেন মৃত্যুর জন্য অপেক্ষা করছে কলিজার টুকরা রুহান। তাই ছেলের চিকিৎসার জন্য দেশের বিত্তবান, হৃদয়বান মানুষের কাছে আর্থিক সাহায্য চেয়ে হাত বাড়িয়েছেন তিনি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইকতেখারুল ইসলাম বলেন, রুহানের বাবার মুখে তার অসুস্থতার কথা শুনে-জেনে সমাজসেবা অফিসের মাধ্যমে সহায়তার পাশাপাশি ব্যাক্তিগতভাবেও সহায়তা করেছি। তিনি আরও বলেন, মানুষ মানুষের জন্য-সেই অর্থে রুহানকে বাঁচাতে হবে। সামর্থ অনুযায়ী সকলের এখুনি এগিয়ে আসা প্রয়োজন। তা না হলে সত্যিই একটা সম্ভাবনা চিরতরে হারিয়ে যাবে।

সাহায্য পাঠাতে রুহানের বাবা জয়নুল সরদার বিকাশ নম্বর ০১৭৪১-১৩৭৮০৪, সোনালী ব্যাংক লিঃ আত্রাই শাখা, নওগাঁ অ্যাকাউন্ট নম্বর  ৪৮০৩৩০১০১৭৮৪২। 


আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন


মন্তব্য করুন

Video