নাটকের মাধ্যমে মানুষের সুখ-দুঃখের কথা তুলে ধরতে চাই: নাট্যকর্মী জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়

৪ নভেম্বার, ২০১৯ ০৭:১৬ pm

সংস্কৃতি অঙ্গন প্রতিবেদক:

চাঁদপুরের সাংস্কৃতিক ও নাট্য জগতে এক সময়ের একজন নিবেদিতপ্রাণ নাট্যকর্মী ছিলেন জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়। নাটক ও সংস্কৃতিকে ভালোবেসে এক সময় শাহ্রাস্তি উপজেলায় নিজেই প্রতিষ্ঠা করেন অপরূপা নাট্যগোষ্ঠী নামে একটি নাট্য সংগঠন। তার একান্ত প্রচেষ্টায়ই তখন শাহরাস্তিসহ চাঁদপুরের ঐতিহ্যবাহী মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা, জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও নাটক মঞ্চায়ন করতো অপরূপা নাট্যগোষ্ঠী। জাহাঙ্গীর আলম হৃদয় শুধু একজন নাট্যকর্মীই নন, এর পাশাপাশি তিনি সাংবাদিকতা ও সাহিত্য চর্চাও করে চলেছেন। তার মেধার কারণেই এক সময় বেশ চাঙ্গা ছিলো অপরূপা নাট্য সংগঠনটি। গত কয়েক বছর আগে এ নাট্যকর্মী নিজের জীবিকার তাগিদে প্রবাসে চলে যাওয়ায় অপরূপা নাট্যগোষ্ঠীর কার্যক্রমে ভাটা পড়েছে। বর্তমানে সংগঠনটির গতিশীল কার্যক্রম তেমন নেই। অপরূপা নাট্য সংগঠন এবং তার সাংস্কৃতিক কর্মকা- নিয়ে মুঠোফোনের মাধ্যমে তার সাথে কথা হয়। নিচে তা তুলে ধরা হলো।

সংস্কৃতি অঙ্গন প্রতিবেদক:   স্বদেশের মাটি ছেড়ে প্রবাসের মাটিতে কেমন আছেন?

জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়:   আলাহমদুলিল্লাহ ভালো আছি। আমি দেশের মাটিতে যেমন ছিলাম আল্লাহর অশেষ রহমতে প্রবাসের মাটিতেও তেমনি ভালো আছি।

সংস্কৃতি অঙ্গন প্রতিবেদক:  আপনি কিভাবে সংস্কৃতি অঙ্গনের সাথে যুক্ত হলেন? এ ক্ষেত্রে অনুপ্রেরণা কার ছিল?

জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়:  আমি প্রাইমারি স্কুলে থাকাবস্থায় নাটক পছন্দ করতাম, আর বাবার চাকুরির সুবাদে আমরা চট্টগ্রামে থাকতাম। বিকেলে শিল্পকলা একাডেমীতে যেতাম ঘুরার জন্য। মঞ্চ নাটক দেখতাম এবং একসময় চট্টগ্রাম সমীকরণ থিয়েটারের সাথে শিশু শিল্পী হিসেবে অভিনয় শুরু করি। তারপরে ঢাকা রাজধানী থিয়েটারে কাজ করি, আর এ ক্ষেত্রে আমাকে উৎসাহ দিতেন আমার সেজো ভাই অ্যাডভোকেট মোঃ শামসুল আলম ।

সংস্কৃতি অঙ্গন প্রতিবেদক:  প্রবাসে আপনি কোনো নাট্য কিংবা সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে জড়িত আছেন কি না?

জাহাঙ্গীর আলম হৃদয় : হ্যাঁ আছি। আমি ২০০৮ সালে সৌদি আরবে আসি, এসে দেখি এখানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বলতে গান ছাড়া আর কিছু হয় না। তাই নিজে একজন মঞ্চকর্মী হিসেবে নাট্যচর্চা করার লক্ষ্যে গত ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৪ সালে আমরা ক’জন বন্ধু মিলে প্রতিষ্ঠা করি রিয়াদ-বাংলাদেশ থিয়েটার। যার সভাপতি আমি। যার শ্লোগান হচ্ছে-নাটক হোক সুস্থ সমাজের দর্পণ। এ ঈদে রিয়াদ-বাংলাদেশ থিয়েটার থেকে আমার লেখা নাটক আরিফুর রহমান টিটুর নির্দেশনায় মঞ্চস্থ হবে। সহযোগিতায় আছেন খালেদ শাহাবউদ্দিন ও মির্জা কামাল। নাটকটির নাম দিয়েছি- ‘আমি মুসলিম’। এটি আরবিতে লেখা হয়েছে।

সংস্কৃতি অঙ্গন প্রতিবেদক:  আপনি তো চাঁদপুর শাহ্রাস্তি অপরূপা নাট্যগোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। আপনার অনুপস্থিতিতে কেমন আছে আপনার সংগঠন?

হৃদয়:   একজন বাবা তার সন্তানকে যতোটা ভালোবাসবে তা অন্য কেউ পারবে না। আমি ১৯৯৬ সালে এই সংগঠনটি প্রতিষ্ঠা করি। একটানা ২০০৮ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সংগঠনটির কার্যক্রম ছিলো লক্ষ্যণীয়। পেয়েছে লাখো মানুষের ভালোবাসা। আমি আসার পরে এটি কিছুদিন চলে। এখন এটির কর্মকা- নেই।

সংস্কৃতি অঙ্গন প্রতিবেদক: বর্তমানে আপনার সংগঠন কি কোনো কার্যক্রমই করছে না?

জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়: করছে, একেবারে বন্ধ নয়, শুধু মাঝে মাঝে আমার সংগঠনের বেশ কিছু সদস্য ফোন করে বলে, ভাই আপনি কবে দেশে আসবেন, আবার নাটক করবেন, আপনি না এলে কিছু হবে না। আবার আমার কাছের কিছু মানুষ আছে যাদের ভালোবাসা নিয়ে অপরূপা নাট্যগোষ্ঠী অনেক দূর পথ পাড়ি দিতে সক্ষম হয়েছিল। তাদের সাথে কথা হলে বলে, হৃদয় তুমি কবে আসবে, তুমি ছাড়া শাহরাস্তিতে সংস্কৃতি হবে না। আজ আর সরকারিভাবে নাটক হয় না। উপজেলা পরিষদ মিলনায়তন জমে না। কোনো আলোচনা সভা হলে তোমার নাম আসে সবার আগে।

সংস্কৃতি অঙ্গন প্রতিবেদক:  সংগঠনটির কার্যক্রম বন্ধ হবার কারণ কী ?

জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়: সন্তান যিনি জন্ম দেন তিনি ছাড়া তার মর্যাদা কে বুঝবে বলেন। আর বেশির ভাগ সদস্য ঢাকায় আছে, কেউ প্রবাসে আছে। সবাই যার যার কর্ম নিয়ে ব্যস্ত। তাই সেভাবে চলছে না ।

সংস্কৃতি অঙ্গন প্রতিবেদক: আপনি দেশে আসলে কি আগের মতো নিজের সংগঠনটিকে জাগিয়ে তুলবেন?

জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়: ইনশাল্লাহ আবার জমবে মেলা, হাটতলা, বটতলা…! আমার পুরো চাঁদপুর জেলাবাসী দেখতে পাবে অপরূপা নাট্যগোষ্ঠীর আগের কর্মকান্ড।

সংস্কৃতি অঙ্গন প্রতিবেদক:  নাটক নিয়ে আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?

জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়:  নাটক হোক সুস্থ সমাজের দর্পণ-এই শ্লোগানকে নিয়ে এগিয়ে যেতে চাই। নাটকের মাধ্যমে মানুষের সুখ-দুঃখ তুলে ধরতে চাই।

সংস্কৃতি অঙ্গন প্রতিবেদক:  প্রবাসে থেকে নিজ দেশের সংস্কৃতি কতটুকু অনুভব করেন?

জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়:  যখন নিজের কাছের কোনো বন্ধুকে টেলিভিশনে বা মঞ্চে অভিনয় করতে দেখি তখন অনেক ভাল লাগে, ইচ্ছে করে প্রবাস ছেড়ে দেশে চলে যাই ।

সংস্কৃতি অঙ্গন প্রতিবেদক:  আপনি তো লিখেনও। নিজেকে কী হিসেবে দেখতে পছন্দ করেন? অভিনেতা না লেখক?

জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়:  দুটিই আমার ভালো লাগে।

সংস্কৃতি অঙ্গন প্রতিবেদক:  আপনার সাংস্কৃতিক জীবনের কোনো স্মরণীয় ঘটনা আমাদের বলুন।

জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়:  আমার স্মরণীয় একটি ঘটনা হলো ২০০৬ সালে আমি একটি তেল কোম্পানির বিজ্ঞাপন করতে ঢাকা উত্তরার ৭নং সেক্টরের একটি শুটিং লোকেশনে মডেল হিসেবে গেলাম। রাতে সবাই আমাকে তেল কোম্পানির বিজ্ঞাপনে কী বলতে হবে তা দেখিয়ে দিচ্ছেন। এমন সময় হঠাৎ করে এক মহিলা দৌড়ে এসে আমাকে জড়িয়ে ধরে আমার দু গালে চুমু খাচ্ছেন আর বলছেন, দারুণ হইছে। আমি বলছি, এই যে আমাকে ছাড়ুন। আপনে কে? উপস্থিত সবাই হাসতে হাসতে বলতে লাগলো, আরে হৃদয় ইনি হচ্ছেন তোমার তেলের বিজ্ঞাপনের মা। আমি বললাম! ও তাই। আরেকবার চাঁদপুর জেলার সংগীত শিল্পী মৃণাল সরকারের একটি গানের সাথে মডেলিং করার জন্য আমি আর সুমন নামের আরেকটি ছেলে লঞ্চযোগে রওনা হই। সেহরী খেয়ে রোজা রেখেছি দেখে আমার সাথের মডেল তানিসা বললো, তোমার চেহারা নষ্ট হয়ে যাবে। এসব কথা মনে হলে আজও আমি নিজে নিজে হাসতে থাকি। আরও অনেক ঘটনা আছে ঢাকা থিয়েটারের, বেইলি রোডের মহিলা সমিতির- যা বলে শেষ করা যাবে না ।

সংস্কৃতি অঙ্গন প্রতিবেদক:   আপনার প্রিয় অভিনেতা কারা?

জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়:  প্রয়াত আব্দুল্লাহ আল মামুন, হুমায়ুন ফরিদী। যারা জীবিত আছেন তাদের মধ্যে আবুল হায়াত, আলী যাকের, মাসুম আজিজ, জাহিদ হাসান, তৌকির আহমেদ, মীর সাব্বির, মোশারফ করিম ও চঞ্চল।

সংস্কৃতি অঙ্গন প্রতিবেদক:  নিজেকে নিয়ে কী স্বপ্ন দেখেন?

জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়:  আমি সৎভাবে জীবন যাপন করবো, মানুষের কল্যাণে কাজ করবো ।

সংস্কৃতি অঙ্গন প্রতিবেদক: সংস্কৃতি জীবনে আপনার প্রাপ্তি ও অপ্রাপ্তিগুলো আমাদের বলুন।

জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়:  ইনশাল্লাহ আবার জমবে মেলা, হাটতলা-বটতলা। জেলাবাসী দেখতে পাবে অপরূপা নাট্যগোষ্ঠীর আগের কর্মকান্ড। ২০১৫ সাল পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। আপনি হয়তো জানেন, এ অপরূপা নাট্যগোষ্ঠী ২০০০ সাল থেকে চাঁদপুর মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলাতে নিয়মিত মঞ্চ নাটক নিয়ে আসতো। ২০০১-২০০৩ সাল পর্যন্ত চট্টগ্রাম শিল্পকলা একাডেমীতে নাট্যোৎসবে যোগদান করে, ২০০৪ সালে বাংলাদেশ সরকারের জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অধীনে স্যানিটারি ল্যাট্রিন ব্যবহার করার জন্য উপজেলার প্রতিটি স্কুলে, বাজারে নাটক পরিবেশন করে, যার আর্থিক সহায়তা দিয়েছিলো ইউনিসেফ। তারা আমাকে রাইটার হিসেবে সম্মাননা প্রদান করে।

২০০৫ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের (ব্র্যাক) এনএনপি পুষ্টি বিষয়ক কার্যক্রমের ৩ দিনের কর্মশালায় ১০ সদস্যের একটি টিম নিয়ে সরকারি খরচে নোয়াখালী পল্লী উন্নয়ন একাডেমী (বার্ডে) অংশ নেই। ২০০৬ সালে বাংলাদেশের নোবেল বিজয়ী ড. মোঃ ইউনুসের গ্রামীণ ব্যাংকের একটি প্রকল্প (রেইন ওয়াটার হারভেস্টিং)-এর ৩ দিনের কর্মশালায় যোগ দিতে ২০ সদস্যের এক টিম নিয়ে কুমিল্লা-পল্লী উন্নয়ন একাডেমী-(বার্ড)-এ অংশ নেই। সেখানে আরো বিভিন্ন জেলা থেকে ১৭টি নাট্য সংগঠন অংশ নেয়। প্রতিযোগিতায় শাহ্রাস্তি অপরূপা নাট্যগোষ্ঠী ১ম স্থান লাভ করে। যার ফলে আমরা নিজ উপজেলাসহ পার্শ্ববর্তী কচুয়া উপজেলার মোট ৭০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জনসচেতনতামূলক নাটক প্রদর্শন করি।

পরে ঢাকায় গ্রামীণ ভবনে সম্মাননা প্রদান ও ভিডিও নাটক ধারণ করা হয়। নাটকের নাম আশার আলো। রচনা ও পরিচালনায় আমিই ছিলাম। ২০০৭ সালে চ্যানেল আই স্টুডিওতে তারকা আড্ডা অনুষ্ঠানে টেলিভিশন অভিনেতা মীর সাব্বির ভাইয়ের সাথে যোগদান করি, যা সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। একই বছর ২০০৭ সালে চাঁদপুরের জনপ্রিয় সাংস্কৃতিক সংগঠন চতুরঙ্গ কর্তৃক জেলার শ্রেষ্ঠ নাট্য সংগঠক হিসেবে সম্মাননা ক্রেস্ট গ্রহণ করি।

২০১৭ সালে রিয়াদ বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে নাট্য সন্মাননা, ২০১৮-১৯ চাঁদপুর ইলিশ উৎসবে সাংস্কৃতিক সংগঠক, জেলা শিল্পকলা একাডেমী মঞ্চ থেকে যা আমার হাতে তুলে দেন চতুরঙ্গের মহাসচিব হারুন আল রশীদ, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি, দৈনিক চাঁদপুর কণ্ঠের প্রতিষ্ঠাতা, সম্পাদক ও প্রকাশক এ্যাডভোকেট ইকবাল-বিন-বাশার, বর্তমান সাহিত্য একাডেমীর মহাপরিচালক, চাঁদপুর কণ্ঠের প্রধান সম্পাদক কাজী শাহাদাত। সেসব দিনের কথা মনে হলে অনেক কষ্ট হয়। অপ্রাপ্তি বলতে এখন যেটা বাকি আছে তা হচ্ছে প্রবাস থেকে দেশে ফিরে যে কোনো চ্যানেলে ধারাবাহিকভাবে নাটক করা।

সংস্কৃতি অঙ্গন প্রতিবেদক: আপনার পারিবারিক জীবন সম্পর্কে আমাদের বলুন।

হৃদয়: আমার পিতা মরহুম আবদুল খালেক পাটোয়ারী একজন সরকারি কর্মকর্তা ছিলেন। মা মিসেস ফিরোজা পাটোয়ারী। আমরা পাঁচ ভাই, তিন বোন। ভাই-বোনের মাঝে আমি সপ্তম। দেশের বাড়ি গ্রাম-কৃষ্ণপুর পাটোয়ারী বাড়ি,পৌর ১১ নং ওয়ার্ড, ডাকঘর-টামটা, উপজেলা-শাহরাস্তি , জেলা-চাঁদপুর, বাংলাদেশ।

কুমিল্লা গোমতী নদীর চরে নদী কেন্দ্রিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

কুমিল্লা গোমতী নদীর চরে নদী কেন্দ্রিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

স্টাফ রিপোর্টার: কুমিল্লায় জেলা শিল্পকলার আয়োজনে গোমতী নদীর চরে দেশজুড়ে নদী কেন্দ্রিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (১৬ নভেম্বর) বিকেলে আদর্শ সদর উপজেলার বানাশুয়ায় সাংস্কৃতিক বিস্তারিত →

কুমিল্লায় বন্ধুর বৌভাত অনুষ্ঠানে পেঁয়াজ উপহার

কুমিল্লায় বন্ধুর বৌভাত অনুষ্ঠানে পেঁয়াজ উপহার

স্টাফ রিপোর্টার: কুমিল্লা সদরে বন্ধুর বৌভাত অনুষ্ঠানে পাঁচ কেজি পেঁয়াজ উপহার দিয়েছেন বরপক্ষের তিন বন্ধু। উপহারের মোড়কে মোড়ানো পেঁয়াজের সেই ছবি আর ভিডিও এখন সামাজিক বিস্তারিত →

কুমিল্লায় ‘সম্প্রতি সংলাপ’ অনুষ্ঠিত

কুমিল্লায় ‘সম্প্রতি সংলাপ’ অনুষ্ঠিত

স্টাফ রিপোর্টার: কুমিল্লায় সম্প্রতি বাংলাদেশ এর সেমিনার কর্মসূচি “সম্প্রতি সংলাপ” আজ শুক্রবার বিকেলে নগরীর নজরুল ইন্সটিটিউট কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয়েছে।   কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মোঃ আবুল বিস্তারিত →

কুমিল্লায় দুই শিশু ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

কুমিল্লায় দুই শিশু ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার: কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলা সদর ইউনিয়নের ডুমুরিয়া গ্রামে ২য় শ্রেণীতে পড়–য়া দুই স্কুলছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে সুমন মিয়াকে (২৯) গ্রেফতার করেছে মুরাদনগর থানা পুলিশ।   বিস্তারিত →

কুমিল্লায় বডিফিটিং অবস্থায় গাঁজাসহ দুই মাদকবহনকারি আটক

কুমিল্লায় বডিফিটিং অবস্থায় গাঁজাসহ দুই মাদকবহনকারি আটক

স্টাফ রিপোর্টার: কুমিল্লার মুরাদনগরে বডিফিটিং অবস্থায় গাঁজা পাচারের সময় ৩ কেজিসহ দুই মাদক বহনকারিকে আটক করেছে মুরাদনগর থানা পুলিশ।   বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলার বিস্তারিত →

ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন

সর্বশেষ খবর

Archives

SatSunMonTueWedThuFri
      1
16171819202122
23242526272829
30      
      1
       
    123
18192021222324
       
      1
16171819202122
30      
     12
       
    123
       
14151617181920
21222324252627
28293031   
       
      1
2345678
30      
     12
       
    123
25262728   
       
      1
2345678
9101112131415
3031     
      1
30      
   1234
567891011
       
Surfe.be - cheap advertising