ঘুরে এলাম স্বপ্নের ‘সেন্টমার্টিন’

১১ এপ্রিল, ২০১৯ ১১:৪৭ am

 

ওয়াসিফ রিয়াদ, রাবি প্রতিনিধি:

ছোট বেলা থেকেই ইচ্ছা- খুব কাছ থেকে সাগরের ঢেউ দেখব। সাগর তীরে উপচে পড়া বড় বড় ঢেউয়ে গা ভাসিয়ে দিবো। যতো দিন যাচ্ছিলো সাগরের প্রতি প্রবল এ আকর্ষন যেনো কুড়ে কুড়ে খাচ্ছিলো। এসব জল্পনা-কল্পনা বাস্তবে রুপ নিলো‘ন্যাশনাল ক্যাম্পাস জার্নালিস্ট ফেস্ট-২০১৯’ এর একটি অনুষ্ঠানে গিয়ে। এ বছরের ১৮ এবং ১৯ মার্চ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলো চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (চবিসাস)। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকদের এক হবার সুযোগ হয়। আমরা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার্স ইউনিটি (রুরু) থেকে ১১ জন সেই অনুষ্ঠানে অংশ নিই। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) অনুষ্ঠানটির উদ্বোধন করা হয় এবং সমাপনী অনুষ্ঠিত হয় কক্সবাজারের কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে। এই অনুষ্ঠানকে উপলক্ষ্য করেই আমাদের সমুদ্র ভ্রমণের সূচনা ঘটে। অনুষ্ঠান শেষে লাবনি পয়েন্টে গিয়ে সমুদ্রের ঢেউ উপভোগকরি। প্রথমবারের মতো কাছ থেকে সমুদ্র দেখার সে অনুভূতি ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব নয়। সেদিন মধ্যরাত পর্যন্ত সৈমুদ্র সৈকতে কাটিয়েছিলাম। শীতল বাতাস আর সমুদ্রের গর্জন অন্যরকম অনুভূতির সঞ্চার করেছিলো। সমুদ্রতীরে আচড়ে পড়া ভয়ংকর ঢেউয়ের গর্জনে বুক কেপে উঠলেও যেনো নেশার মত কাছে টানে প্রতিনিয়ত।

 

কক্সবাজারের সৌন্দর্য উপভোগ শেষে আমাদের পরবর্তী গন্তব্য ছিলো সেন্টমার্টিন। তাই ‘মেরিনড্রাইভ’ ধরে টেকনাফ যাবার জন্য আগের রাতেই ‘চাঁদেরগাড়ি’ ভাড়া করে রাখলাম। হোটেলে রাত কাটিয়ে পরদিন সকালের ওনাদিলাম দেশের একমাত্র প্রবালদ্বীপ সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে।এ ড্রাইভের একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য হচ্ছে- একদিকে পাহাড় অন্যদিকে সমুদ্র এবং মাঝখান দিয়ে চলে গেছে আঁকা-বাঁকারাস্তা। চাঁদের গাড়ি নিয়ে আমরা সেই রাস্তা ধরে এগুতে থাকি। পাহাড় আর সাগরের মাঝ পথ দিয়ে আমরা যেনো বিদ্যুৎ গতিতে ছুটে চলছিলাম। বাতাসে চুলগুলো এলোমেলোভাবে উড়ছিলো আর সে সুন্দর মুুহুর্ত বন্দি হচ্ছিলো ক্যামেরায়। দীর্ঘ ৬ ঘন্টার জার্নি শেষেআমরা টেকনাফ পৌঁছালাম। ততক্ষণে সন্ধ্যা ঘনিয়ে এসেছে। সেখানে একটি হোটেলে রাত কাটালাম। পরদিন সকালে সবাই রেডি হলাম লঞ্চে করে সেন্টমার্টিনে যাওয়ার জন্য। বলে রাখা ভালো, টেকনাফ থেকে শুধুমাত্র সকাল সাড়ে নয়টাতেই লঞ্চ ছেড়ে যায়। আর সেন্টমার্টিন থেকে টেকনাফের উদ্দেশ্যে লঞ্চ ছাড়ে বিকেল তিনটায়। আমরা সকাল ৯টার আগেই টেকনাফের লঞ্চঘাটে পৌঁছে গেলাম। টিকিট সংগ্রহ করে উঠে পড়লাম ‘কেয়ারি সিন্দাবাদ’ নামক লঞ্চে। বঙ্গোপসাগরের বুকে ভেসে ওঠা ১২ বর্গ কিলোমিটারের সেন্টমার্টিন দ্বীপে যাওয়ার অভিজ্ঞতা এটিই প্রথম।

 

লঞ্চ ছাড়তেই কোথা থেকে যেন শত শত গাঙ চিল জাহাজের পিছু নেয়া শুরু করল। অনেকেই রুটি, বিস্কুট ছুড়ে দিচ্ছিলো সেই গাঙচিলের দিকে। আর গাঙচিলগুলো সে খাবার মুখে পুড়ে নিচ্ছিলো। প্রায় দেড় ঘন্টা গাঙচিলগুলো আমাদের পিছু ছুটলো। মানুষের ছুড়ে দেওয়া খাবার পানিতে ভেসে ভেসে, উড়ে উড়ে লুফে নেওয়া সে দৃশ্য ক্যামেরা বন্দি করছিলো অনেকেই। এমন অপরূপ দৃশ্য দেখার আগ মূহুর্ত পর্যন্ত কেউ কল্পনা করতে পারবে বলে মনে হয়না। পরে নাফনদী এবং বঙ্গোপ সাগরের সন্ধীক্ষণে আসার পর পাখিগুলো থেমে যায়।

 

দীর্ঘ ৩ ঘন্টার পথ অতিক্রম করার পর আমরা এসে পৌঁছালাম কাঙ্খিত সেই সেন্টমার্টিন দ্বীপে। সমুদ্রের মাঝে ভেসেওঠা ছোট্ট এই দ্বীপে কয়েক হাজার মানুষের স্থায়ী বসবাস। প্রতিদিন হাজারও পর্যটক এখানে আসে এবং তাঁদের দিয়েই জীবিকা নির্বাহ করছে এখানকার স্থায়ী বাসিন্দারা। এখানে অনেক কম খরচেই বাসা ভাড়া পাওয়া যায়। আমরা ২টি রুম ভাড়া নিলাম। কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিয়ে বেড়িয়ে পরলাম। পুরো বিকেল ঘুরলাম সমুদ্রের তীরে। অনেক দিনের আশা ছিলো সমুদ্র তীরে বসে চাঁদ দেখার। অবিশ্বাস্য হলেও সেদিন রাতেই সুপারমুন উঠেছিল। লঞ্চঘাটে বসে আমরা চাঁদ এবংসমুদ্র উপভোগ করছিলাম আর পাশাপাশি চলছিলো গলা ছেড়ে গান। চাঁদ-সমুদ্রের গভীর মিতালির এরকম একটা রাত নাকাটালে বুঝতেই পারতাম না-জীবন কতটা সুন্দর হতে পারে।

 

আমাদের পরবর্র্তী পরিকল্পনা ছিলো ছেড়াদ্বীপ যাওয়া। সেন্টমার্টিন দ্বীপ থেকে বিচ্ছিন্ন অংশটিই ছেড়াদ্বীপ নামে পরিচিত। পরদিন সকালে লাইফ বোটে করে আমরা ছেড়া দ্বীপের উদ্দেশ্যে রওনা দিলাম। প্রায় ৩০মিনিট সমুদ্র পাড়িদিয়ে পৌঁছাই সেখানে। আমার দেখা সব থেকে বড় ঢেউ দেখেছিলাম ছেড়াদ্বীপের শেষপ্রান্তে। বড় বড় পাথর আর সেই পাথরে আচড়ে পড়া ঢেউ, সাথে ভয়ঙ্কর গর্জন। কি যে অদ্ভুত ভালো লাগা কাজ করছিলো তা বলে বুঝানো যাবেনা। ছেড়াদ্বীপের শেষ প্রান্তে না আসলে সমুদ্র দেখবার স্বাদ মেটানো সম্ভব নয়। যদি প্রশ্নকরো ছেড়াদ্বীপের শেষ প্রান্তে গিয়ে কি সমুদ্র দেখবার স্বাদ মিটেছে? উত্তরে আমি বলব- আবারও যেতে চাই সমুদ্রে ভেসে ওঠা ছোট্ট সেই দ্বীপ সেন্টমার্টিন।

১৯ জেলায় নতুন জেলা প্রশাসক নিয়োগ!

১৯ জেলায় নতুন জেলা প্রশাসক নিয়োগ!

  বর্তমান প্রতিদিন ডেস্ক: সারা দেশের ১৯ জেলায় নতুন জেলা প্রশাসক (ডিসি) নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মুহাম্মদ শাহীন ইমরান স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে এ আদেশ বিস্তারিত →

কমলাপুরে স্টেশন মাস্টার উধাও, রেল স্টেশনট্রেনের শিডিউল বিপর্যয়!

কমলাপুরে স্টেশন মাস্টার উধাও, রেল স্টেশনট্রেনের শিডিউল বিপর্যয়!

বর্তমান প্রতিদিন ডেস্ক: প্রিয়জনের সাথে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে ঢাকা ছাড়ছেন রাজধানীবাসী। আজ শুক্রবার (৩১ মে) ছুটির দিন হওয়ায় সকাল সকালই গন্তব্যের জন্য রওনা বিস্তারিত →

রাবিতে সাত পুকুর গবেষণা প্রকল্পের কাজ শুরু

রাবিতে সাত পুকুর গবেষণা প্রকল্পের কাজ শুরু

ওয়াসিফ রিয়াদ, রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) পুকুরগুলো সংরক্ষণ ও সৌন্দর্য বৃদ্ধির লক্ষ্যে সাত পুকুর প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে। বুধবার সকাল ৯টায় উপাচার্য অধ্যাপক এম বিস্তারিত →

বগুড়ায় জব্দ করা হলো ১০ লাখ টাকার নিষিদ্ধ ওষুধ

বগুড়ায় জব্দ করা হলো ১০ লাখ টাকার নিষিদ্ধ ওষুধ

বর্তমান প্রতিদিন ডেস্ক: আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে অভিযান চালিয়ে ওষুধ জব্দের পাশাপাশি আদালত ওই গুদামের মালিককে ১ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন।বগুড়া শহরের গোহাইল সড়কের একটি ওষুধের বিস্তারিত →

রাবির মতিহার হলের নতুন প্রভোস্ট মুসতাক আহমেদ

রাবির মতিহার হলের নতুন প্রভোস্ট মুসতাক আহমেদ

ওয়াসিফ রিয়াদ, রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) মতিহার হলের নতুন প্রভোস্ট হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন গনযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক মুসতাক আহমেদ। সম্প্রতি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক বিস্তারিত →

ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন

সর্বশেষ খবর

Archives

SatSunMonTueWedThuFri
15161718192021
22232425262728
2930     
       
      1
       
    123
18192021222324
       
      1
16171819202122
30      
     12
       
    123
       
14151617181920
21222324252627
28293031   
       
      1
2345678
30      
     12
       
    123
25262728   
       
      1
2345678
9101112131415
3031     
      1
30      
   1234
567891011
       
Surfe.be - cheap advertising